ইউটিউব থেকে আয় করার ৫টি উপায়। ইউটিউব থেকে ইনকাম করার উপায়।

আসসালামু আলাইকুম। ইউটিউব থেকে আয় করার ৫টি উপায়। ইউটিউব থেকে ইনকাম করার উপায়। আপনি যদি ইউটিউব নিয়ে কাজ করতে চান তাহলে সম্পূর্ন পোষ্ট টা মন দিয়ে পড়ুন।

ইউটিউব থেকে আয় করার ৫টি উপায়। ইউটিউব থেকে ইনকাম করার উপায়।

ইউটিউব থেকে আয় করার ৫টি উপায়

মনিটাইজেশন এর মাধ্যেমে টাকা ইনকাম।

বাংলাদেশের যারা ইউটিউবে কাজ করে তাদের ইনকামের প্রথম উপায় হচ্ছে মনিটাইজেশন । সাধারণত মনিটাইজেশন টার্গেট করেই তারা কাজ শুরু করে । আপনি যদি ইউটিউব থেকে মনিটাইজেশনের মাধ্যমে ইনকাম করতে চান আপনাকে এক বছরের মধ্যে ১০০০ সাবস্ক্রাইব ৪০০০ ঘন্টা ওয়াচ টাইম ফিলাপ করতে হবে । এটা আপনার সর্বশেষ এক বছরের মধ্যে কমপ্লিট করলেই হবে ।

আপনি যদি এইটা ফিলাপ করতে পারেন তাহলে মনিটরিলাইজেশন এর জন্য আবেদন করতে হবে । আবেদন করার পর যদি আপনার আবেদন গ্রহণ করা হয় তাহলে আপনার ইনকাম শুরু হবে । পরবর্তীতে আপনার চ্যানেলে youtube অ্যাড দেখাবে এবং সেখান থেকে আপনার সাথে রেভিনিউ শেয়ার করবে ।

প্রমোট করে টাকা ইনকাম।

প্রমোশন করে ইনকাম করা ইউটিউব এর খুবই জনপ্রিয় একটা মাধ্যম । যত বড় বড় চ্যানেল রয়েছে তারা মনিটাইজেশনের মাধ্যমে যে টাকা ইনকাম করে। তার থেকে কয়েক গুণ বেশি টাকা ইনকাম করে প্রমোশনের মাধ্যমে। যাদের চ্যানেলে অনেক বেশি ভিউ রয়েছে তারা এক একটা প্রমোশনের জন্য লক্ষ টাকার অধিক চার্জ করে । সাধারণত ইউটিউব ভিডিওর কোন একটা অংশে কোন কোম্পানির প্রমোশন করার মাধ্যমে তারা এই কাজটা করে থাকে ।

আপনি যদি ইউটিউব থেকে প্রমোশনের মাধ্যমে ইনকাম করতে চান ।তাহলে অবশ্যই আপনার ভিডিওর কোয়ালিটি ভালো হতে হবে এবং আপনার ভিডিওতে অবশ্যই বেশি ভিউ থাকতে হবে । এখানে একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে আপনার ভিডিও ডেসক্রিপশন বক্সে এবং আপনার চ্যানেলের এবাউট এ  আপনার কন্টাক্ট ইনফরমেশন অ্যাড করে দেবেন। যাতে যারা প্রমোট করতে চায় তারা আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারে।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম।

বর্তমানে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং অনেক অনেক বড় একটা মেথড অনলাইন থেকে ইনকাম করার। অনেক এর কাছে এটা প্রধান ইনকাম মেথড। আবার অনেক এর কাছে এটা একটা প্যাসিভ ইনকাম। তবে এখানে কিছু কথা মনে রাখবেন। আপনার চ্যানেল এর উপর ও অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর ইনকাম নির্ভর করে।

আপনার চ্যানেল যদি হয় কোন পন্য রিভিউ এর তাহলে আপনি অ্যাফিলিয়েট করে সবচেয়ে বেশি ইনকাম করতে পারবেন। যে পন্য রিভিউ করবেন তার অ্যাফিলিয়েট লিংক শেয়ার করে ইনকাম করতে পারবেন। আর যদি অন্য ক্যাটাগরির হয় তাহলে হয়তো এই মেথড থেকে ইনকাম কম হবে।

চ্যানেল সদস্যপদ এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম।

এটা সম্পর্কে হয়তো খুব একটা মানুষ জানে না। আমরা সাধারনত ইউটিউব এ ফ্রি ভিডিও দেখে থাকি। তবে আপনারা হয়তো জানতে পারেন ইউটিউব এ পেইড মেম্বার শিপ জয়েন করানো যায়। তাদের আপনি একস্ট্রা সার্ভিস দিতে পারবেন। আমি একটা উদাহরন দিলে বুঝতে পারবেন। কিছু গেমস এর চ্যানেল আছে আপদি যদি তাদের মেম্বারশিপ কিনেন আপনি ভিডিও এর লাইভ খেলায় অংশগ্রহন করতে পারবেন। এরকম অনেক গুলো উপায় আছে। যেমন আপনি তাদের পেইড ভিডিও দিলেন ইত্যাদি।

রেফার ও পন্য বিক্রি করে ইনকাম।

রেফার ও পন্য বিক্রি দুইটা আলাদা বিষয়। রেফার হচ্ছে কোন কিছুর লিংক কিংবা কোড ব্যবহার করে কোন কম্পানিতে কাউকে জয়েন করানো। আর এখানে আপনি যে কম্পানির রেফার করবেন সেই কম্পানি আপনাকে কমিশন দিবে। এই ক্যাটাগরি থেকে যারা অনলাইন এ ইনকাম করার জন্য বিভিন্ন সাইট শেয়ার করে তারা বেশি টাকা ইনকাম করতে পারে। মনে করেন আপনি একটা সাইট এর ভিডিও শেয়ার করলেন কিভাবে সাইট এ কাজ করবে মানুষ টাকা ইনকাম করবে। আপনি এই সাইট এর রেফার লিংক আপনার ভিডিও এর ডেসক্রিপশন বক্সে শেয়ার করলেন।

এখন এই লিংক এ ক্লিক করে যতজন এখানে একাউন্ট করবে আপনি ১০ টাকা করে পাবেন। আপনার ভিডিও যদি ১ লাখ মানুষ দেখে। তার মধ্যে যদি ১০ হাজার মানুষ এখানে একাউন্ট করে তাহলে একবার ভাবুন আপনার কত টাকা ইনকাম হবে।

আপনি কিন্তু এক লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন । এখন যাদের চ্যানেল ছোট তাদের ভিডিও কম মানুষ দেখবে তাই তাদের ইনকাম ও কম হবে। তবে আপনি যদি লেগে থাকেন আশা করা যায় এখাবে ভালো ইনকাম করতে পারবেন।

পন্য বিক্রি করে ও আপনি ইনকাম করতে পারবেন। আপনার অনলাইন কিংবা অফলাইন এ যদি কোন ব্যাবসা থাকে। আপনি চাইলে আপনার পন্য গুলোর ভিডিও ইউটিউব এ দিতে পারেন। আপনার ভিডিও দেখে যদি মানুষ পন্য কিনে তাহলে আপনার সেল বৃদ্ধি পাবে সাথে আপনার ইনকাম।ইউটিউব থেকে আয় করার ৫টি উপায়

সতর্কতা: ইউটিউব চ্যানেল খুলে আজ থেকে ই লাখ লাখ টাকা ইনকাম করা শুরু করতে পারবেন এরকম চিন্তা বাদ দেন। আপনাকে যেকোন কাজ এ সফলতা পেতে হলে আপনাকে সে কাজ এ সময় দিতে হবে। কাজ এর গুনগত মান বাড়াতে হবে। কাজ এর কোয়ালিটি ভালো করার চেস্টা করে যেতে হবে। কাজের ধারাবহিকতা ঠিক রাখতে হবে। এসব বিষয় ফলো রাখলে আশা করা যায় ইনশা আল্লাহ আপনি সফলতা পাবেন। ধন্যবাদ

আরো পড়ুন: সরকারিভাবে দক্ষিণ কোরিয়া যাওয়ার উপায়

Leave a Comment