ডেস্কটপ ও ল্যাপটপ এর মধ্যে পার্থক্য। ল্যাপটপ কিনব না ডেস্কটপ কিনব।

আসসালামু আলাইকুম। ডেস্কটপ ও ল্যাপটপ এর মধ্যে পার্থক্য। ল্যাপটপ কিনব না ডেস্কটপ কিনব। আপনি যদি ল্যাপটপ কিনবেন নাকি ডেস্কটপ কিনবেন এটা নিয়ে দ্বিধার মধ্যে থেকে থাকেন তাহলে আজকের পোস্ট আপনার জন্য। আশা করি আজকের পোস্ট পড়ার পর আপনার ল্যাপটপ কিনবেন না ডেক্সটপ কিনবেন এর একটা সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে সাহায্য করবে। তাহলে চললে শুরু করা যাক।
ডেস্কটপ ও ল্যাপটপ এর মধ্যে পার্থক্য। ল্যাপটপ কিনব না ডেস্কটপ কিনব।

ডেস্কটপ ও ল্যাপটপ এর মধ্যে পার্থক্য

ল্যাপটপ কিনার সুবিধা কি কি? 

ল্যাপটপ কেনার সবচেয়ে বড় কিছু সুবিধা হচ্ছে আপনি এটা যে কোন জায়গায় নিয়ে যেতে পারবেন। আপনি যদি ল্যাপটপ কিনেন কারেন্ট চলে গেলে ও কিন্তু এটা কয়েক ঘণ্টা এটা ব্যবহার করা যায়। তাছাড়া ল্যাপটপ আপনি যেকোনো সময় গুছিয়ে খুব সুন্দর ভাবে যেকোনো জায়গায় রেখে দিতে পারবেন। বর্তমান সময়ে ল্যাপটপগুলো অন্যায় উন্নত মানের হয় এবং এগুলো দিয়ে অনেক বাড়ি বাড়ি কাজ করা যায়। আপনি যদি একজন স্টুডেন্ট হন এবং যেকোনো জায়গায় পড়াশোনার জন্য যেতে চান। যদি আপনার কম্পিউটারের প্রয়োজন হয় এক্ষেত্রে আপনার ল্যাপটপ কিনা সবচেয়ে ভালো সিদ্ধান্ত হবে।

ডেস্কটপ কিনার কি কি সুবিধা রয়েছে।

ডেক্সটপ কেনার সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে এটা দুই গুণ বেশি পাওয়ারফুল ল্যাপটপের থেকে। আপনি যেই কনফিগারেশনের ল্যাপটপ কিনবেন যদি একই কনফিগারেশন এর একটা ডেস্কটপ কিনেন তাহলে ল্যাপটপের থেকে আপনার ডেক্সটপ পারফরম্যান্স ভালো করবে। ডেক্সটপ দিয়ে কোন সমস্যা ছাড়াই আপনি অনেক বাড়ি বাড়ি কাজ করতে পারবেন। যেমন আপনি ভিডিও এডিটিং, গ্রাফিক ডিজাইন, থ্রিডি অ্যানিমেশন, গেমিং সহ আরো অনেক ভারি কাজগুলো আছে যেগুলো আপনি ডেস্কটপ দিয়ে সহজে করতে পারবেন। হয়তোবা এই কাজগুলো আপনি যদি ল্যাপটপ দিয়ে করতে চান তাহলে আপনার আপনার ল্যাপটপ হ্যাং করার সম্ভাবনা রয়েছে।

লেপটপ এর দাম বেশি নাকি ডেস্কটপ এর?

ল্যাপটপ কিংবা ডেক্সটপ দুইটার দাম নির্ভর করে কনফিগারেশন এর উপর। আপনি যত ভাল কনফিগারেশন এর ল্যাপটপ কিংবা ডেস্কটপ কিনবেন তার দাম তত বেশি হবে। তাহলে চলুন দুইটার মধ্যে তুলনামূলক আলোচনা করা যাক। মনে করেন আপনি কোর আই সেভেন এর একটি ল্যাপটপ টেন জেনারেশনের তৈরি করবেন বা কিনবেন। অথবা আপনি একই কনফিগারেশন এর একটা ডেস্কটপ কিনবেন। এখন যদি আপনার এই কনফিগারেশন এর একটা ল্যাপটপ কিনতে প্রায় দেড় লক্ষ টাকা খরচ হয় সেক্ষেত্রে মাত্র ৮০ হাজার বা এই টাকার নিচেই আপনি একটা ডেস্কটপ তৈরি করতে পারবেন। প্রথমেই বলেছি যে ল্যাপটপের তুলনায় ডেক্সটপের পারফরম্যান্স ভালো হবে। এজন্য যদি আপনি চান যে কম বাজেটে ভালো পারফরম্যান্স লাগবে তাহলে অবশ্যই আপনাকে ডেস্কটপ এর দিকে মুভ করতে হবে।

ল্যাপটপ কাঁদের কেনা উচিত?

যাদের বেশি বেশি মুভ করতে হয় তাদের অবশ্যই ল্যাপটপ কেনা উচিত। যাদের বাড়ি গ্রামে কিংবা এমন জায়গায় যেখানে ঘন ঘন বিদ্যুৎ চলে যায়। বাড়িতে বিদ্যুৎ চলে গেলে ইলেকট্রিসিটির কোন  ব্যবস্থা নেই তাদের অবশ্যই ল্যাপটপ কেনা উচিত। আপনি যদি স্টুডেন্ট হন কিংবা এমন পেশায় যুক্ত থাকেন যেখানে আপনাকে বিভিন্ন জায়গায় যেতে হবে এবং কম্পিউটার দিয়ে কাজ করতে হবে তাহলে আপনার ল্যাপটপ কেনা উচিত। যাদের বাড়িতে সেফটি কম অর্থাৎ খোলা জায়গায় ডেক্সটপ রেখে দিলে ভেঙে ফেলার বা কেউ কিছু ডিলিট করে দেওয়া সম্ভাবনা রয়েছে তাদেরও ল্যাপটপ কেনা উচিত।

ডেস্কটপ ও ল্যাপটপ এর মধ্যে পার্থক্য

ডেক্সটপ কাঁদের কেনা উচিত?

প্রথমত আপনি যদি বাড়ি বাড়ি কাজ করতে চান সে ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে ডেস্কটপে কিনতে হবে। আপনার বাজেট যদি একটু কম থাকে তাহলে আপনি ভালো ডেস্কটপ পাবেন। তাই আপনার বাজেট কম হলে ডেস্কটপ কেনা উচিত। ল্যাপটপ যাদের কেনা উচিত এই কারণগুলো যাদের মধ্যে নেই তাদেরই ডেস্কটপ কেনা উচিত ।

শেষকথা: আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী আপনি ল্যাপটপ কিংবা ডেস্কটপ কিনবেন। আপনি যদি উপরের পোস্ট মন দিয়ে পড়ে থাকেন তাহলে হয়তো আপনি এতক্ষণে বুঝতে পারছেন কাদের কোনটা কেনা উচিত। আপনারা ল্যাপটপ কিনলে ব্যাটারি ব্যাকআপ পাবেন কিন্তু ডেক্সটপ কিনলে সেটা পাবেন না। বারবার বিদ্যুৎ চলে গেলে ডেক্সটপে সমস্যা হতে পারে এজন্য আপনার একটা ইউপিএস কিনে নিতে পারেন যা আপনি খুব কম দামের মধ্যে পেয়ে যাবেন।

এটা দিয়ে আপনি কারেন্ট চলে গেল ১৫ থেকে ৩০ মিনিট দাম অনুযায়ী ব্যাকআপ পাবেন। আপনি যদি এরকম কোন কাজ করেন যে আপনাকে বারবার জায়গা পরিবর্তন করতে হয় ।তাহলে আমি আপনাকে বলব অবশ্যই আপনার ল্যাপটপ কেনা উচিৎ । তাহলে আপনি এটা আপনার সাথে নিয়ে যেতে পারবেন। আশা করি এই পোস্টগুলো পড়ে আপনাদের সবার কিছুটা হলেও সিদ্ধান্ত নিতে সহজ হবে। ভালো থাকবেন সবাই। ধন্যবাদ

আরো পড়ুন: ফেসবুক থেকে ইনকাম করার উপায়

Leave a Comment